তেজস্ক্রিয়তার উৎস কি?




  • 1 Answer(s)

    তেজস্ক্রিয়তার উৎসকে তিন ভাগে ভাগ করা যায়: ১। প্রাকৃতিক, ২। মানুষের সৃষ্ট ও ৩। পারিপার্শ্বিক পরিবেশগত।

    ১। প্রাকৃতিক উৎস: পৃথিবীর সবদিকে মহাশূন্য থেকে ইলেকট্রন, প্রোটন ও কয়েকটি পরমাণুর নিউক্লিয়াস প্রায় আলোর বেগে পৃথিবীতে আঘাত হানে। এদেরকে মহাজাগতিক রশ্মি (Cosmic rays) বলে। এই রশ্মিগুলো বৈদ্যুতিক চার্জযুক্ত এবং অল্প মাত্রায় বায়ুমণ্ডল ভেদ করে ভূপৃষ্ঠে চলে আসে। সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে ভূপৃষ্ঠের উচ্চতা যত বেশি হয়, এর মাত্রা ততই বাড়তে থাকে। পার্থিব বিকিরণ অর্থ্যাৎ পৃথিবী এবং তার বায়ুমন্ডল থেকে উদ্ভুত বিদ্যুৎ-চৌম্বক বিকিরণও তেজস্ক্রিয়তার একটি উৎস। পৃথিবী সৃষ্টির সময় যেসব তেজস্ক্রিয় মৌল বিদ্যমান ছিল তার কিছু পরিমাণ এখনো আছে। কারণ এদের জীবনকাল খুবই দীর্ঘ। যেমন K-40, U-238 and Th-232 ইত্যাদি। প্রাকৃতিক উৎসের মধ্যে সবচেয়ে গুরত্বপূর্ণ হচ্ছে রেডন গ্যাস। এটি বাতাস থেকে ৮ গুণ ভারী। এর তিনটি প্রাকৃতিক আইসোটোপ রয়েছে। এগুলো রেডিয়াম, ইউরানিয়াম ও থোরিয়ামের তেজস্ক্রিয়তা থেকে সৃষ্টি হয়। এছাড়া প্রাকৃতিক শিলা, উদ্ভিদ, প্রাণী ও বিভিন্ন শিল্প থেকে প্রচুর রেডিয়ান গ্যাস বায়ুমন্ডলে যোগ হয়। সাধারণভাবে একজন মানুষ বছরে তিন মিলি সিভার্ট প্রাকৃতিক তেজস্ক্রিয়তার সম্মুখীন হয়।

    ২। মানুষের সৃষ্ট: মানুষের সৃষ্ট তেজস্ক্রিয়তার মাত্রা স্থান-কাল-পাত্র ভেদে বিভিন্ন রকমের হয়। চিকিৎসায় এক্স-রে ও অন্যান্য বিকিরণ থেরাপির মেশিন তেজস্ক্রিয়তার উল্লেখযোগ্য উৎস। শিল্প ক্ষেত্রে উৎপাদন বৃদ্ধি ও দ্রব্যের মান যাচাইয়ের জন্য বিভিন্ন কমপোনেন্ট ব্যবহার হয় যেগুলো থেকে বিপজ্জনক বিরণের সৃষ্টি হয়। নিউক্লিয়ার চুল্লী এবং যেসব পারমাণবিক মারণাস্ত্র জনবিরল এলাকায় পরীক্ষা-নিরিক্ষা করা হয় সেখান থেকে নির্গত তেজস্ক্রিয়তা বিরাট এলাকার মানুষের জন্য বিপজ্জনক। এছাড়া পারমাণবিক বিদ্যুৎ চুল্লী থেকে বিভিন্ন দূর্ঘটনায় (চেরনোভিল ও ফুকুশিমা)বিপুল পরিমানে তেজস্ক্রিয় পদার্থ আশেপাশের বিরাট এলাকায় ছড়িয়ে পড়ে।

    ৩। পারিপার্শ্বিক পরিবেশ:
    আমাদের আশেপাশের প্রায় প্রত্যেক বস্তু থেকেই কমবেশি বিকিরণ হচ্ছে। আমাদের বাড়িঘর, খাদ্য, পানীয় এমনকি আমাদের নিজের শরীর থেকেও তেজস্ক্রিয় রশ্মির বিকিরণ হচ্ছে।

    এই বিকিরণ খুবই কম মাত্রার যা মানুষের জন্য ক্ষতিকর নয়। পারিপার্শ্বিক পরিবেশের উপর ভিত্তি করে এর হার কমবেশি হতে পারে। যেমন ইট-পাথরের তৈরি ঘরের বিকিরণের মাত্রা কাঠের ঘরের চেয়ে বেশি।

    Gold Answered on 04/06/2018.
    Add Comment



  • Your Answer

    By posting your answer, you agree to the privacy policy and terms of service.