'একাদশে বৃহস্পতি' -অর্থ কি?

আশার কথা

সৌভাগ্যের বিষয়

মজা পাওয়া

আনন্দের বিষয়

Description (বিবরণ) :

প্রশ্ন: 'একাদশে বৃহস্পতি' -অর্থ কি?

ব্যাখ্যা: প্রশ্নের ব্যাখ্যা দেখতে জব অ্যাসিস্ট্যান্ট এর নতুন ভার্সন ভিজিট করুন!


Related Question

'কবর' কবিতাটি কোন কাব্য গ্রন্থের অন্তর্গত ?

বালুচর

রাখালী

ধানক্ষেত

সোজন বাদিয়ার ঘাট

কোনটিই নয়

Description (বিবরণ) : প্রশান্ত মহাসাগর পৃথিবীর বৃহত্তম মহাসাগর। দ্বিতীয় বৃহত্তম মহাসাগর আটলান্টিক মহাসাগর।

আহসান হাবীব এর কাব্যগ্রন্থ কোনটি ?

আশার বসতি

ছায়াহরিণ

সারাদুপুর

দুই হাতে দুই আদিম পাথার

সবগুলোই

Description (বিবরণ) : নিয়ত বায়ু(Planetary Winds or, Permanent Winds): যে বায়ু সর্বদাই উচ্চচাপ অঞ্চল হতে নিম্নচাপ অঞ্চলে দিকে প্রবাহিত হয়, তাকে নিয়ত বায়ু বলে।

"যাহা দিলাম তাহা উজাড় করিয়াই দিলাম । এখন ফিরিয়া তাকাইতে গেলে দুঃখ পাইতে হইবে ।" এই উক্তিটি কোনটির অন্তর্গত ?

বিলাসী

হৈমন্তী

অর্ধাঙ্গিনী

বৈকালী

সৌদামিনী মালো

' হাজার বছর ধরে ' রচনাটি কার ?

জহির রায়হান

মুনীর চৌধুরী

সৈয়দ মুজতাব আলী

মোতাহের হোসেন চৌধুরী

প্রথম চৌধুরী

Description (বিবরণ) : সুমেরু অঞ্চল বা আর্কটিক (ইংরেজি: Arctic) পৃথিবীর সর্ব উত্তরের অঞ্চলটির নাম। ইংরেজি নামটি এসেছে গ্রিক শব্দ arktos থেকে যার অর্থ " ভালুক"। সুমেরুর বিপরীতে পৃথিবীর অপর (দক্ষিণতম) প্রান্তে আছে কুমেরু (দক্ষিণ মেরু)।

' আখানে তোর দাদীর কবর ডালিম গাছের তলে, তিরিশ বছর ভিজায়ে রেখেছি দুই নয়নের জলে ।' -কবিতার পরের কোন লাইনটি সঠিক ?

এখানে ওখানে ঘুরিয়া ফিরিতে ভেবে হইতাম সারা,

পুতুলের বিয়ে ভেঙ্গে গেল বলে কেঁদে ভাসাইত বুক।

দাদী যে তোমার কত খুশি হত দেখিতিস যদি চেয়ে ।

আমারে ছাড়িয়া এত ব্যথা যার কেমন করিয়া হায় ,

এতটুকু তারে ঘরে এনেছিনু সোনার মতন মুখ

Description (বিবরণ) : ২০১৮ সালের ১৩ নভেম্বর পিএসসির সুপারিশক্রমে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় ইকোনমিক ক্যাডারকে প্রশাসন ক্যাডারের সঙ্গে একীভূত করে গেজেট প্রকাশ করে। ফলে বিসিএস ক্যাডারের সংখ্যা ২৭টি থেকে কমে ২৬টি হয়।

' তপুকে আবার ফিরে পাবো , একথা ভুলেও ভাবিনি কোন দিন ।' নিম্নে কোনটি থেকে নেয়া ?

বইকেনা

মানুষ

একুশের গল্প

ভাষার কথা

অসীমের সন্ধানে

Description (বিবরণ) : মহাস্থানগড় বাংলাদেশের একটি অন্যতম প্রাচীন পুরাকীর্তি। পূর্বে এর নাম ছিল পুণ্ড্রবর্ধন বা পুণ্ড্রনগর। এক সময় মহাস্থানগড় বাংলার রাজধানী ছিল। এখানে মৌর্য, গুপ্ত, পাল, সেন সাম্রাজ্যের প্রচুর নিদর্শন পাওয়া গিয়েছে। এর অবস্থান বগুড়া জেলার শিবগঞ্জ উপজেলায়। বগুড়া শহর থেকে প্রায় ১০ কি.মি উত্তরে মহাস্থান গড় অবস্থিত।

কোন সালে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর সাহিত্যে 'নোবেল' পুরষ্কার পান ?

১৮১৩

১৯১৪

১৯১৩

১৯১৫

১৯১৬

Description (বিবরণ) : বাংলাদেশের সংবিধানের ৭৫ নং অনুচ্ছেদ অনুযায়, জাতীয় সংসদের কার্য পরিচালনার জন্য কোরাম থাকতে হয় এবং অধিবেশনে কোরামের জন্য ন্যূনতম ৬০ জন সদস্যের উপস্থিতি প্রয়োজন হয়।

নিচের কোনটি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর রচিত নয় ?

মৃত্যু-ক্ষুধা

রাজা

কল্পনা

ডাকঘর

চিরকুমার সভা

Description (বিবরণ) : ফিরোজ শাহ তুঘলকের মৃত্যুর পর দিল্লী সুলতানির পতন আসন্ন হয়ে পড়ে । ১৩৯৮ খ্রীষ্টাব্দে তৈমুর লঙ্গের ভারত আক্রমণ এই পতনের প্রক্রিয়াকে আরও ত্বরান্বিত করে । তৈমুর লঙ্গের ভয়ে সুলতান নাসিরুদ্দিন মামুদ দিল্লী ছেড়ে পালিয়ে যান । তৈমুরের আক্রমণ দিল্লি সুলতানির অন্তসার শূন্যতাকেই সর্বসমক্ষে তুলে ধরে । ফলে দিল্লি সুলতানির মর্যাদা ও পতিপত্তি ভূলুন্ঠিত হয়ে যায় । প্রচুর ধনসম্পদ লুঠ করে তৈমুর দিল্লির অর্থনীতিকে পঙ্গু করে দেয় । কিন্তু তৈমুর ভারতে সাম্রাজ্য স্থাপনের কোন চেষ্টা করেননি । সেজন্য ধ্বংস এবং বিশৃঙ্খলা ছাড়া তাঁর আক্রমণের কোন গঠন মূলক ফল পরিলক্ষিত হয় নাই । ভারতীয় দৃষ্টিতে তৈমুর লঙ্গ ভয় ও তাসের প্রতীক একজন লুণ্ঠনকারী মাত্র ।

' ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগর' -এর পারিবারিক পদবি কোনটি ?

চৌধুরী

চট্রোপাধ্যায়

চক্রবর্তী

বন্দ্যোপাধ্যায়

ঠাকুর

Description (বিবরণ) : রেনেসাঁসের অভিধানিক অর্থ হল পুনর্জন্ম বা পুনর্জাগরণ বা নবজাগরণ। এই যুগের ব্যাপ্তিকাল ছিল আনুমানিক চতু্র্দশ থেকে ষোড়শ শতাব্দী পর্যন্ত। আধুনিক ইউরোপের উদ্ভবের ক্ষেত্রে রেনেসাঁস অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। এটি মূলত একটি দীর্ঘস্থায়ী সমাজ পরিবর্তন প্রক্রিয়া। এই রেনেসাঁসের ভেতর দিয়ে আধুনিক পাশ্চাত্য সভ্যতার উত্থান ঘটেছে এবং একইসঙ্গে অবসান ঘটেছে মধ্যযুগের।

সুকান্ত ভট্রাচার্য মৃত্যুবরণ করেন মাত্র -

১৮ বছর বয়সে

২০ বছর বয়সে

২১ বছর বয়সে

১৯ বছর বয়সে

২৩ বছর বয়সে

Description (বিবরণ) : ১৯২০ সালের ১০ জানুয়ারি প্যারিস শান্তি আলোচনার মধ্য দিয়ে গঠন করা হয় আন্তর্জাতিক প্রতিষ্ঠান ‘লীগ অব নেশনস’। ত্রিশের দশকে লীগ অব নেশনস বিভিন্ন আগ্রাসনের বিরুদ্ধে দাঁড়াতে ব্যর্থ হয়। সংস্থাটি থেকে সরে দাঁড়ায় জার্মানি, জাপান, ইতালি, স্পেনসহ আরো কিছু দেশ। সংস্থাটি দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধও এড়াতে পারেনি। সাংগঠনিক দুর্বলতা ও বিশ্বশান্তি বিধানে ব্যর্থ হয়ে ১৯৪৬ সালে সংস্থাটির বিলুপ্তি ঘটে। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পরে এর স্থলাভিষিক্ত হয় জাতিসংঘ।