অধিকরণ কারকে সপ্তমী বিভক্তির উদাহরণ আছে কোন বাক্যটিতে?

ডানার রৌদ্রের গন্ধ মুছে ফেলে চিল

কাজের পরিচয় ফলে বোঝা যায়

ফুলের গন্ধে ঘুম আসেনা একলা জেগে এই

আকাশে তো আমি রাখি নাই মোর উড়িবার ইতিহাস

Description (বিবরণ) :

প্রশ্ন: অধিকরণ কারকে সপ্তমী বিভক্তির উদাহরণ আছে কোন বাক্যটিতে?

ব্যাখ্যা:

ক্রিয়া সম্পাদনের কাল (সময়) এবং আধারকে অধিকরণ কারক বলে। অধিকরণ কারকে সপ্তমী অর্থাৎ 'এ' 'য়' 'তে' ইত্যাদি বিভক্তি যুক্ত হয়। যেমন-
আধার (স্থান): আমরা রোজ স্কুলে যাই। এ বাড়িতে কেউ নেই।
কাল (সময়): প্রভাতে সূর্য ওঠে। বসন্তে কোকিল ডাকে।


Related Question

কোন সাহিত্যাদর্শের মর্মে নৈরাশ্যবাদ আছে?

রোমান্টিসিজম

আধুনিকতাবাদ

উত্তরাধুনিকতাবাদ

বাস্তববাদ

Description (বিবরণ) :

উত্তরাধুনিকতা অতীত ও বর্তমান চিন্তার সংমিশ্রণকে বোঝায়। পাশ্চাত্যের আধুনিকতা বা উত্তরাধুনিকতাবোধ এবং প্রাচ্যের তথা আমাদের আধুনিকতাবোধ এক নয়। আমাদের আধুনিকতাবোধ মূলত তিরিশি আন্দোলনে সৃষ্ট সাহিত্য থেকে শুরু। কিন্তু উত্তরাধুনিকতাবাদ খোদ নন্দনতত্ত্বকেই অস্বীকার করে। উত্তরাধুনিকতাবাদে সাহিত্যের কিছু সংরূপ যা আধুনিকতাবাদে অটুট ছিল যেমন- উপন্যাস, গীতিকবিতা, মহাকাব্য, ছোটগল্প প্রভৃতির ভেদকেও অস্বীকার করে। উত্তরাধুনিকতাবাদীদের ভাষ্য যে, শিল্পে এমন দেয়াল তুলে দেয়া যাবে না। একথা বলা বাহুল্য যে উত্তরাধুনিকতা নব্য ধনতান্ত্রিক বিশ্বব্যবস্থাজাত। সুকৌশলে পর্যায়ক্রমিক অভাব সৃষ্টি, বহুমুখী উৎপাদন, বহুজাতিক বাজার নির্ভর ধনতন্ত্র। দার্শনিক লিয়েতারেরও লক্ষ্যও ছিল অতি উন্নত সমাজের দিকে। নব্য বা পরিণত পুঁজিবাদী সমাজের দিকে। পরিণত পুঁজিবাদে জ্ঞানের স্বরূপ এবং অন্ত:পরিবর্তনকেই তিনি উত্তরাধুনিকতা বলে অভিহিত করেন। এই অন্ত:পরিবর্তন বলতে তিনি মেটান্যারেটিভ বা গ্রান্ডন্যারেটিভ এর পরিবর্তনকেই বুঝিয়েছেন।

' কাশবনের কন্যা' গ্রন্থটির লেখক কে?

আবুল কালাম শামসুদ্দিন

শামসুদ্দীন আবুল কালাম

আবুল ফজল

জসীমউদ্‌দীন

Description (বিবরণ) :

কাশবনের কন্যা - শামসুদ্‌দীন আবুল কালাম আখ্যান খুব জটিল নয়। মূলত দু’জোড়া নায়ক-নায়িকার দুটি প্রায় সমান্তরাল উপকাহিনী এ উপন্যাসে বিবৃত হয়েছে। দুই নায়ক পরস্পরের ঘনিষ্ঠ বন্ধু হলেও সময়ক্রমে একে অন্যের অনুবতী—সখিনা আর মেহেরজান। শিকদারের ক্ষেত্রে একটি, জুবেদা। হোসেনের উপাখ্যানে হোসেন-সখিনার সম্পর্কের মধ্যে গ্রাম্য প্রেমের চেহারাটাও তত স্পষ্ট হয়নি। সখিনাকে বিয়ে করার কথা হোসেন ভেবেছে অনেকটা হঠাৎ কিশোরী সখিনাকে দেখে মুগ্ধ হয়ে, নিজের সাংসারিক প্রয়োজনের কথা হিসেব করে।

' শাশ্বত বঙ্গ' গ্রন্থটির রচয়িতা কে?

কাজী মোতাহার হোসেন

আবুল হুসেন

কাজী আবদুল ওদুদ

কাজী আনোয়ারুল কাদির

Description (বিবরণ) :

গত শতাব্দীর বিশের দশকের প্রারম্ভেই বাংলা প্রবন্ধ সাহিত্যে কাজী আবদুল ওদুদের আত্মপ্রকাশ ঘটে। সাহিত্য জীবন ‘মীর পরিবার’ নামক ছোট গল্প গ্রন্থ দিয়ে শুরু হলেও তাঁর আসল ও প্রধান পরিচয় তিনি একজন পরিশ্রমী প্রবন্ধকার ও সমালোচক। তিনি সর্বমোট বাইশ খানা গ্রন্থের রচয়িতা। সাহিত্য, সমাজ, ধর্ম, দর্শন ও রাজনীতি প্রভৃতি বিষয়ে তাঁর অসংখ্য প্রবন্ধ রয়েছে। ‘কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ’ (দুই খণ্ড), ‘কবিগুরু’ গ্যেটে (দুই খণ্ড) ও শাশ্বত বঙ্গ’’- এই তিনখানা তাঁর কালজয়ী গ্রন্থ। এই তিনখানি গ্রন্থের জন্য তিনি বাংলা প্রবন্ধ ও সমালোচনা সাহিত্যে চিরস্মরণীয় হয়ে থাকবেন। 

' বেটাইম' শব্দটি গঠিত হয়েছে -----

ফারসি ও ইংরেজি শব্দে

ফরাসি ও ইংরেজি শব্দে

ফারসি ও ফরাসি শব্দে

ফারসি ও হিন্দি শব্দে

Description (বিবরণ) :

'বেটাইম' শব্দটি গঠিত হয়েছে---ফারসি (বে) ও ইংরেজি (টাইম) শব্দে.

' হাত-ভারি' বাগধারার অর্থ -----

দাতা

কম খরচে

দরিদ্র

কৃপণ

Description (বিবরণ) :

বাগধারা শব্দের আভিধানিক অর্থ কথার বচন ভঙ্গি বা ভাব বা কথার ঢং। বাক্য বা বাক্যাংশের বিশেষ প্রকাশভঙ্গিকে বলা হয় বাগধারা। বিশেষ প্রসঙ্গে শব্দের বিশিষ্টার্থক প্রয়োগের ফলে বাংলায় বহু বাগধারা তৈরী হয়েছে। এ ধরনের প্রয়োগের পদগুচ্ছ বা বাক্যাংশ আভিধানিক অর্থ ছাপিয়ে বিশেষ অর্থের দ্যোতক হয়ে ওঠে।

' লাজ' কোন ধরনের শব্দ?

বিশেষ্য

বিশেষণ

ক্রিয়া-বিশেষণ

বিশেষ্যের-বিশেষণ

Description (বিবরণ) :

কোনো কিছুর নামকে বিশেষ্য পদ বলে।। বাক্যমধ্যে ব্যবহৃত যে সমস্ত পদ দ্বারা কোনো ব্যক্তি, জাতি, সমষ্টি, বস্তু, স্থান, কাল, ভাব, কর্ম বা গুণের নাম বোঝানো হয় তাদের বিশেষ্য পদ বলে।

বিশেষ্য পদ ছয় প্রকার

১. সংজ্ঞা (বা নাম) বাচক বিশেষ্য (Proper Noun)
২. জাতিবাচক বিশেষ্য (Common Noun)
৩. বস্তু (বা দ্রব্য) বাচক বিশেষ্য (Material Noun)
৪. সমষ্টিবাচক বিশেষ্য (Collective Noun)
৫. ভাববাচক বিশেষ্য (Verbal Noun)
৬. গুণবাচক বিশেষ্য (Abstract Noun)

ঢাকার ' মুসলিম সাহিত্য সমাজ' -এর প্রতিষ্ঠা কোন খ্রিস্টাব্দে?

১৯২৬

১৯১১

১৮৬৪

১৯০৫

Description (বিবরণ) :

১৯২৬ সালের ১৯ জানুয়ারি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ও ঢাকা ইন্টারমিডিয়েট কলেজের কয়েকজন যুক্তিবাদী ও প্রগতিশীল শিক্ষক ও ছাত্রের উদ্যোগে প্রতিষ্ঠিত হয় মুসলিম সাহিত্য-সমাজ। সাহিত্য ও সংস্কৃতিবিষয়ক সংগঠনটি পরিচালনার দায়িত্ব পালন করতেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতি ও বাণিজ্য বিভাগের অধ্যাপক আবুল হুসেন, মুসলিম হলের ছাত্র এ এফ এম আবদুল হক, ঢাকা ইন্টারমিডিয়েট কলেজের ছাত্র আবদুল কাদিরসহ আরো কয়েকজন। এঁরাই ছিলেন প্রথম কার্যনির্বাহী সংসদের সদস্য। নেপথ্যে থেকে দায়িত্ব পালন করতেন ঢাকা ইন্টারমিডিয়েট কলেজের বাংলা বিভাগের অধ্যাপক কাজী আবদুল ওদুদ ও যুক্তিবিদ্যার অধ্যাপক কাজী আনোয়ারুল কাদীর।

' সঞ্চিতা' কোন কবির কাব্য সংকলন?

রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর

সত্যেন্দ্রনাথ দত্ত

কাজী নজরুল ইসলাম

জীবনানন্দ দাশ

Description (বিবরণ) :

সঞ্চিতা বাংলা সাহিত্যের অন্যতম জনপ্রিয় এবং বাংলাদেশের জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের কাব্য-সংকলন। এই গ্রন্থে ঊনআশিটি কবিতা ও সতেরোটি গান আছে। এর মধ্যে - ‘বিদ্রোহী’, ‘সর্বহারা’, ‘সাম্যবাদী’, ‘মানুষ’, ‘জীবন বন্দনা’, ‘খুকী ও কাঠবেড়ালী’, ‘চল্‌ চল্‌ চল্‌’ প্রভৃতি প্রধান।

গ্রন্থটির উৎসর্গ পত্রে লেখা আছে: “বিশ্বকবিসম্রাট শ্রীরবীন্দ্রনাথ ঠাকুর শ্রীশ্রীচরণারবিন্দেষু”।

কাচিঁ কোন ধরনের শব্দ?

আরবি

ফারসি

হিন্দি

তুর্কি

Description (বিবরণ) :

কাঁচি, কাবু, কুলি, কুর্নিশ, চাকর, চাকু, তোপ, দারোগা, বন্দুক, বারুদ, বাবা, বাবুর্চি প্রভৃতি তুর্কি শব্দ।

'হাত-ভারি' বাগধারার অর্থ-

দাতা

কম খরচে

দরিদ্র

কৃপণ

Description (বিবরণ) :

‘হাত ভারি’ (কৃপণ): হাতভারি লোকের কাছে চাঁদা চেয়ে কোনো লাভ নেই।