নজরুল ইসলামের সম্পাদিত পত্রিকা কোনটি?

মাহে নও

সওগাত

ধূমকেতু

কালিকলম

Description (বিবরণ) :

প্রশ্ন: নজরুল ইসলামের সম্পাদিত পত্রিকা কোনটি?

ব্যাখ্যা: বাংলা সাহিত্যের বিদ্রোহী কবি বাংলাদেশের জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম সম্পাদিত পত্রিকা 'দৈনিক নবযুগ ' (১৯২০) 'ধূমকেতু' (১৯২২), 'লাঙ্গল' (১৯৫২)।


Related Question

জীবনানন্দ দাশের প্রবন্ধগ্রন্থ কোনটি?

ধূসর পাণ্ডুলিপি

কবিতার কথা

ঝরা পালকের কবি

দুর্দিনের যাত্রী

Description (বিবরণ) : তিমির হননের কবি জীবনানন্দ দাশ (১৮৯৯ -১৯৫৪) -এর প্রবন্ধগ্রন্থ 'কবিতার কথা' (১৯৫৪)। তার রচিত কাব্যগ্রন্থ: 'ঝরাপালক' (১৯২৭), 'ধূসর পাণ্ডুলিপি' (১৯৩৬), 'বনলতা সেন ' (১৯৪২) , সাতটি তারার তিমির ' (১৯৪৮) , 'রুপালী বাংলা' (১৯৫৭)। উপন্যাস : 'মাল্যবান' (১৯৭৩) , 'সতীর্থ (১৯৭৪) । 'দুর্দিনের যাত্রী' (১৯২২) এবং 'যুগবাণী' (১৯২৬) কাজী নজরুল ইসলাম রচিত প্রবন্ধ গ্রন্থ।

' সাত সাগরের মাঝি' কাব্যগ্রন্থের রচয়িতা কে?

কাজী নজরুল ইসলাম

ফররুখ আহমদ

আব্দুল কাদির

বন্দে আলী মিয়া

Description (বিবরণ) : কাজী নজরুল ইসলাম (১৮৯৯-১৯৭৬) রচিত কয়েকটি কাব্যগ্রন্থ 'অগ্নিবীণা' (১৯২২) ,'দোলন চাঁপা, (১৯২৩) ,সিন্ধু হিন্দোল' (১৯২৭) , 'বিষের বাঁশী' (১৯২৪) , 'ভাঙ্গার গান ' (১৯২৪) , 'ছায়ানট' (১৯২৪) , 'প্রলয় শিখা ' (১৯৩০) , 'পূবের হাওয়া ' (১৯২৫) , 'সর্বহারা (১৯২৬) । ইসলামী স্বাতন্ত্র্যবাদী কবি ফররুখ আহমদের উল্লেখযোগ্য কাব্যগ্রন্থ 'সাত সাগরের মাঝি' (১৯৪৪) ,'মুহুর্তের কবিতা' (১৯৬৩) । ছান্দসিক কবি আব্দুল কাদিরের কবিতা গ্রন্থ ' দিলরুবা' (১৯৩৩), 'উত্তর বসন্ত' (১৯৬৭) । পল্লী প্রকৃতির সৌন্দর্য বর্ণনায় নৈপুন্যের স্বাক্ষরকারী বন্দে আলী মিয়ার রচিত কাব্যগ্রন্থ 'ময়নামতির চর ' (১৯৩২), 'অনুরাগ(১৯৩২)।

বাংলাদেশের ভাষা আন্দোলনভিত্তিক উপন্যাস কোনটি?

অগ্নিসাক্ষী

চিলেকোঠার সেপাই

আরেক ফাল্গুন

অনেক সূর্যের আশা

Description (বিবরণ) : কথাশিল্পী ও চলচ্চিত্র পরিচালক জহির রায়হান (১৯৩৫-১৯৭২) ১৯৫২ সালে রাষ্ট্রভাষা আন্দোলন সক্রিয়ভাবে অংশগ্রহণ করেন। ভাষা আন্দোলনের ওপর তার রচিত উপন্যাস 'আরেক ফ্লাগুন' (১৯৬৮) এবং আখতারুজ্জামান ইলিয়াসের উপন্যাস 'চিলেকোঠার সেপাই' (১৯৭৮) ঊনসত্তরের গণঅভ্যুত্থানের প্রেক্ষাপটে রচিত।

মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক উপন্যাস কোনটি ?

শঙ্খনীল কারাগার

কাঁটাতারে প্রজাপতি

জাহান্নাম হইতে বিদায়

আর্তনাদ

Description (বিবরণ) : কথাসাহিত্যিক হুমায়ূন আহমেদের উল্লেখযোগ্য উপন্যাস 'নন্দিত নরকে' 'শঙ্খনীল কারাগার' 'আগুনের পরশমণি' 'জোছনা ও জননীর গল্প '। এর মধ্যে 'আগুনের পরশমণি' তার মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক উপন্যাস 'জাহান্নাম হইতে বিদায়" (১৯৭১) ,'নেকড়ে অরণ্য' (১৯৭৩) , 'দুই সৈনিক' (১৯৭৩) এবং জলাংগী' (১৯৮৬) ।

শওকত ওসমান কোন উপন্যাসের জন্য আদমজী পুরস্কার লাভ করেন?

বনী আদম

জননী

চৌরসন্ধি

ক্রীতদাসের হাসি

Description (বিবরণ) : কথাসাহিত্যিক শওকত ওসমান 'ক্রীতদাসের হাসি' (১৯৬২) উপন্যাসের জন্য ১৯৬৬ সালে আদমজী পুরস্কার লাভ করেন। এ উপন্যাসটিতে প্রতীকশ্রয়ে তৎকালীন পাকিস্তানিদের বিরুপ শাসনের সমালোচনা করা হয় । এ উপন্যাসের ইংরেজি অনুবাদ করা হয়' A slave Laughs' (১৯৭৬) । 'বনী আদম' (১৯৬৪) শওকত ওসমানের প্রথম উপন্যাস। ' এছাড়া 'জননী' (১৯৬১) , 'চৌরসন্ধি' (১৯৬৮) প্রভৃতি তার প্রখ্যাত উপন্যাস।

' উপরোধ' শব্দের অর্থ কি?

প্রতিরোধ

উপস্থাপন

অনুরোধ

উপযোগী

Description (বিবরণ) : 'উপরোধ ' শব্দের অর্থ : বিশেষ অনুরোধ ,সুপারিশ, খাতির। 'উপরোধে ঢেকি গেলা' বাগধারাটির এ শব্দের ব্যবহার দেখা যায়, যার অর্থ অনুরোধ এড়াতে না পেরে অনিচ্ছা সত্ত্বে ও কোনো কাজ করা।

কোন গোষ্ঠী থেকে বাঙালি জাতির প্রধান অংশ গড়ে উঠেছে?

নেগ্রিটো

ভোটচীন

দ্রাবিড়

অস্ট্রিক

Description (বিবরণ) : বাঙালি একটি সংকর জাতি। বিভিন্ন জাতির সংমিশ্রণে সময়ের পরিক্রমায় বাঙালি জাতির উদ্ভব হয় । এ দেশে অনার্য, আর্য, মঙ্গল, দ্রাবিড় , পর্তুগিজ ,ইংরেজ প্রভৃতি জাতির আগমন ঘটে । এ দেশ প্রথমে অনার্য তথা অস্ট্রিক গোষ্ঠীর প্রভাবাধীনে ছিল। অস্ট্রিক গোষ্ঠীর আগমনের অন্তত চৌদ্দশ বছর পর বঙ্গদেশে আর্য ও পরে দ্রাবিড় জাতির আগমন ঘটে। আর্যগণ সভ্যতা ও সংস্কৃতিতে অনার্য অপেক্ষা উন্নততর হওয়ায় আর্যদের ভাষা ও সংস্কৃতি কালক্রমে বঙ্গদেশে সুপ্রতিষ্ঠিত হয়েছিল। নৃতাত্ত্বিক বিচারে অনার্য ভাষাভাষী কোল, শবর, পুলিন্দ, হাড়ি, ডোম , চণ্ডাল প্রভৃতি বাংলার আদমি অধিবাসী ,যারা অস্ট্রিক বা অস্ট্রো -এশিয়াটিক গোষ্ঠীর অন্তর্ভু্ক্ত। আনুমানিক পাঁচ -ছয় হাজার বছর পূর্বে ইন্দোচীন থেকে আসাম হয়ে এ অস্ট্রিক গোষ্ঠীর বঙ্গদেশে আগমন ঘটে। এরা চাষাবাদ ,লোহা-তামা প্রভৃতির ব্যবহার জানতো। কাজেই বাঙালি জাতির প্রধান অংশ গড়ে উঠেছে অস্ট্রিক বা অনার্য গোষ্ঠী থেকে।

ঢাকায় সর্বপ্রথম কবে বাংলার রাজধানী স্থাপিত হয়?

১২০৬ খ্রিস্টাব্দে

১৩১০ খ্রিস্টাব্দে

১৬১০ খ্রিস্টাব্দে

১৫২৬ খ্রিস্টাব্দে

Description (বিবরণ) : ঢাকায় সর্বপ্রথম বাংলার রাজধানী স্থাপিত হয় ১৬১০ খ্রিষ্টাব্দে। সুবেদার ইসলাম খান বিহারের রাজমহল থেকে ঢাকায় সর্বপ্রথম রাজধানী স্থানান্তর করেন এবং নামকরণ করেন জাহাঙ্গীরনগর। স্বাধীনতার পূর্বে ঢাকায় সর্বমোট তিনবার রাজধানী স্থাপিত হয় -১৬১০, ১৯০৫ , ১৯৪৭ খ্রিষ্টাব্দে।

ঐতিহাসিক ২১-দফা দাবীর প্রথম দাবীটি কি ছিল?

বাংলাকে অন্যতম রাষ্ট্রভাষা

প্রাদেশিক স্বায়ত্তশাসন

পূর্ববাংলার অর্থনৈতিক বৈষম্য দূরীকরণ

বিনা ক্ষতিপূরণে জমিদারী উচ্ছেদ

Description (বিবরণ) : হোসেন শহীদ সোহরাওয়ার্দী, শেরে বাংলা এ কে ফজলুল হক। মাওলানা ভাসানীর নেতৃত্বে ১৯৫৪ খ্রিষ্টাব্দের সাধারণ নির্বাচনে যুক্তফ্রন্টের নির্বাচনী ইশতেহার ছিল ঐতিহাসিক ২১ দফা। ঐতিহাসিক ২১ দফার প্রথম দাবিটি ছিল বাংলা ভাষা হবে পাকিস্তানের অন্যতম রাষ্ট্রভাষা।

অপরাজেয় বাংলা কবে উদ্বোধন করা হয়?

১৬ ডিসেম্বর ১৯৭৯

২৬ ডিসেম্বর ১৯৭৯

১ জানুয়ারি ১৯৮০

২১ ফেব্রুয়ারি ১৯৮০

Description (বিবরণ) : ত্রিভুজাকৃতি ভূমির সামান্য কিছু ওপরে বন্দুক কাঁধে নারী ও পুরুষের সম্মিলিতভাবে মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণের ও বিজয়ের প্রতীক 'অপরাজেয় বাংলা' ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কলাভবন চত্বরে অবস্থিত। দেশের সর্বস্তরের মানুষের স্বাধীনতার সংগ্রামে অংশগ্রহণের প্রতিকী চিহ্ন অপরাজেয় বাংলা উদ্ধোধন করা হয়, ১৬ ১৯৭৯ । এর স্থপতি সৈয়দ আব্দুল্লাহ খালেদ।