কোন শব্দ গঠনে বাংলা উপসর্গ ব্যবহৃত হয়েছে?

পরাকাষ্ঠা

অভিব্যক্তি

পরিশ্রান্ত

অনাবৃষ্টি

Description (বিবরণ) : বাংলা ব্যাকরণে খাঁটি বাংলা উপসর্গ একুশটি । এগুলো হলো -অ, অঘা, অজ, অনা, আ, আড়, আন, আব, ইতি, ঊন (ঊনা), কদ, কু,নি,পাতি, বি,ভর, রাম, স,সা, সু ও হা । সংস্কৃত উপসর্গ ২০ টি । এর মধ্যে আ, সু, বি,নি এই চারটি বাংলা ও সংস্কৃত উভয় উপসর্গে আছে। অপশনগুলো বিশ্লেষণ করলে দেখা যায়, ক. পরাকাষ্ঠা- পরা + কাষ্ঠা ; খ. অভিব্যক্তি - অভি + ব্যক্তি ; গ. পরিশ্রান্ত - পরি + শ্রান্ত; ঘ. অনাবৃষ্টি - অনা +বৃষ্টি । ক. ক. গ. অপশরে শব্দ তিনিটি সংস্কৃত উপসর্গ দ্বারা গঠিত। কিন্তু ঘ. অপশনে প্রদত্ত 'অনাবৃষ্টি' শব্দটি বাংলা 'অনা' উপসর্গযোগে গঠিত। সুতরাং সঠিক উত্তর ঘ. ।


Related Question

' পালামৌ' ভ্রমণকাহিনীটি কার রচনা?

শরৎচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়

সুনীল গঙ্গোপাধ্যায়

সঞ্জীবচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়

তারাশঙ্কর বন্দ্যোপাধ্যায়

Description (বিবরণ) : 'পালামৌ ভ্রমণকাহিনীর রচয়িতা কথাশিল্পী সঞ্জীবচন্দ্র চট্রোপাধ্যায় (১৮৩৪-১৮১৯) । তিনি বঙ্গিমচন্দ্র চট্রোপাধ্যায়ের মধ্যমাগ্রজ। বঙ্গদর্শন প্রকাশিত 'পালামৌ' সঞ্জীবচন্দ্রের শ্রেষ্ঠ রচনা। শরৎচন্দ্র চট্রোপাধ্যায় (১৮৭৬-১৯৩৮) -এর উপন্যাস শ্রীকান্ত , চরিত্রহীন (১৯১৭) ,দেবদাস (১৯১৭) , পল্লীসমাজ (১৯১৬) , পথের দাবী (১৯২৬) ইত্যাদি। সুনীল গঙ্গেপাধ্যায়  (১৭৯৮-১৯৭১)-এর বিখ্যাত উপন্যাস 'হাঁসুলী বাঁকের উপকথা' (১৯৪৭) ।

' আলোছায়া' পদটি কোন সমাসের অন্তর্গত?

দ্বন্দ্ব সমাস

অব্যয়ীভাব সমাস

তৎপুরুষ সমাস

কর্মধারয় সমাস

Description (বিবরণ) : যে সমাসে দুই বা বহুপদ মিলে একপদ এবং প্রত্যেক পদের অর্থ প্রধানরুপে প্রতীয়মান হয়, তাকে দ্বন্দ্ব সমাস বলে। যেমন - জায়া ও পতি = দম্পতি । আলো ও ছায়া = আলোছায়া , হাট ও বাজার = হাট -বাজার ইত্যাদি। 

কোনটি সাধিত শব্দ নয়?

পানসা

ফুলেল

গোলাপ

হাতল

Description (বিবরণ) : গঠনগত দিক থেকে বাংলা শব্দাবলী দুভাগে বিভক্ত মৌলিক ও সাধিত। যে শব্দকে আর কোনোভাবে বিশ্লেষণ করা যায় না, তাকে মৌলিক শব্দ বলে। যেমন - মা, লাল, তিন হাত, পা গোলাপ ইত্যাদি । যেসব শব্দকে বিশ্লেষণ করা হলে আলাদা অর্থবোধক শব্দ পাওয়া যায়, তাই সাধিত শব্দ যেমন - দয়ালু, পানসা, ফুলেল, হাতল, জমিদার ইত্যাদি। 

' দিবারাত্রির কাব্য' কার লেখা উপন্যাস?

তারাশঙ্কর বন্দ্যোপাধ্যায়

শ্রীকুমার বন্দ্যোপাধ্যায়

ঈশানচন্দ্র বন্দ্যোপাধ্যায়

মানিক বন্দ্যোপাধ্যায়

Description (বিবরণ) : 'দিবারাত্রির কাব্য' (১৯৩৫) মানিক বন্দ্যোপাধ্যায়ের লেখা উপন্যাস। তার রচিত অন্যান্য উপন্যাস হলো -জননী (১৯৩৫) মানিক বন্দ্যোপাধ্যায়ের  লেখা উপন্যাস। তার রচিত অন্যান্য উপন্যাস হলো - জননী (১৯৩৫) , পদ্মানদীর মাঝি (১৯৩৬), পুতুলনাচের ইতকথা (১৯৩৬)  ইত্যাদি। 

কাজী নজরুল ইসলাম রচিত গল্প কোনটি?

পদ্মরাগ

পদ্মগোখরা

পদ্মাপুরাণ

পদ্মাবতী

Description (বিবরণ) : 'পদ্মরাগ' বেগম রোকেয়া সাখাওয়াত হোসেন রচিত উপন্যাস। 'পদ্মগোখরাে' গল্প, যা কাজী নজরুল ইসলাম কর্তৃক রচিত। কবি মালিক মুহম্মদ জায়সির হিন্দিকাব্য' পদুমাবৎ' অবলম্বনে বাঙালি কবি আলাওল' পদ্মাবতী' রচনা করেন। 

' আনোয়ারা' গ্রন্থটি কার রচনা?

কাজী এমদাদুল হক

মীর মশাররফ হোসেন

মোহাম্মদ নজিবর রহমান

ইসমাইল হোসেন সিরাজী

Description (বিবরণ) : 'আনোয়ারা' (১৯১৪) উপন্যাসটি মোহাম্মদ নজিবর রহমানের সৃষ্টি। এটি তার প্রথম ও জনপ্রিয় উপন্যাসটি মোহাম্মদ নজিবর রহমানের সৃষ্টি। এটি তার প্রথম ও জনপ্রিয় উপন্যাস। মুসলিম মধ্যবিত্ত শ্রেণীর বিকাশশীলতার চিত্র ফুটে উঠেছে উপন্যাসটিতে।