ফ্রান্সের বর্তমান প্রেসিডেন্টের নাম কি?

ইমানুয়েল ম্যাক্র

জ্যাক শিরাক

ফ্রঁসিয়ে মিতেরাঁ

জেনারেল দ্য গল

Description (বিবরণ) :

প্রশ্ন: ফ্রান্সের বর্তমান প্রেসিডেন্টের নাম কি?

ব্যাখ্যা: ফ্রান্সের বর্তমান প্রেসিডেন্ট ফ্রঁসোয়া ওঁলাদ। ১৫ মে ২০১২ তিনি ফ্রান্সের ইতিহাসের ২৪ তম এবং ফ্রেঞ্চ পঞ্চম রিপাবলিকের সপ্তম প্রেসিডেন্ট হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণ করেন। নিকোলাস সার্কোজি ছিলেন ফ্রান্সের ২৩তম প্রেসিডেন্ট। উল্লেখ্য, বর্তমানে ফ্রান্সের প্রেসিডেন্টের মেয়াদ ৫ বছর (পূর্বে ছিল ৭ বছর)।


Related Question

হোয়াংহো নদীর উৎপত্তি স্থল কোথায়?

হিমালয়

কুয়েনলুন পর্বত

ব্ল্যাক ফরেস্ট

আল্‌পস

Description (বিবরণ) : হোয়াংহো নদী চীনে অবস্থিত। এর দৈর্ঘ্য ৫,৪৬৪ কিমি; উৎপত্তিস্থল কুয়েনলুন পর্বত। এটি পতিত হয়েছে পীত সাগরে। হোয়াংহো নদীর তীরবর্তী শহর বেইজিং । হোয়াংহোকে বলা হয় হলদে নদ বা পীত নদী।

মেক্সিকো ও যুক্তরাষ্ট্র বিভক্তকারী সীমারেখা কোনটি?

সনোরা লাইন

ম্যাকনামারা লাইন

ডুরান্ড লাইন

হিন্ডারবার্গ লাইন

Description (বিবরণ) : সনোরা লাইন হলো যুক্তরাষ্ট্র ও মেক্সিকোকে বিভক্তকারী সীমারেখা। সনোরা মেক্সিকোর একটি সমুদ্র উপকূলবর্তী রাজ্য। ম্যাকনামারা লাইন যুক্তরাষ্ট্র কর্তৃক উত্তর ও দক্ষিণ ভিয়েতনাম সীমান্তে নির্মিত বৈদ্যুতিক বেষ্টনী। ডুরান্ড লাইন পাকিস্তান ও আফগানিস্তানের মধ্যে সীমানা চিহ্নিতকরণ রেখা। হিন্ডারবার্গ লাইন জার্মানি ও পোল্যান্ডের মধ্যে সীমানা চিহ্নিতকরণ রেখা।

ইউরোপের ককপিট বলা হয় কোন দেশকে?

বেলজিয়াম

ফ্রান্স

জার্মানী

ফিনল্যান্ড

Description (বিবরণ) : প্রায়ই যুদ্ধ সংঘটিত হয়েছে এরুপ স্থানকে ককপিট বলা হয়। বেলজিয়ামকে ইউরোপের ককপিট বা ইউরোপের সমরক্ষেত্র বা রণক্ষেত্র বলা হয়, কারণ এখানে অডেন আর্দে , রামিল্লিস, ফন্টেনোই ফ্লেউরাস, জেম্মাপেস, লিগনি কোয়াটেরে ব্রাস এবং বিখ্যাত ওয়াটুর লু যুদ্ধ সংঘটিত হয় এবং ফিনল্যান্ডকে বলা হয় হাজার দ্বীপের দেশ বা হাজার হ্রদের দেশ।

বিশ্বের কোন দেশের সাক্ষরতার হার ১০০%?

পোল্যান্ড

ফিনল্যান্ড

কাজাকিস্তান

স্লোভাকিয়া

Description (বিবরণ) : UNDP প্রকাশিত মানব উন্নয়ন রিপোর্ট ২০১৪ অনুসারে সাক্ষরতার হার ১০০% -এর দেশ (২৫+ বছর বয়সী) কানাডা, অস্ট্রিয়া, লুক্সেমবার্গ , এস্তােনিয়া ও ফিনল্যান্ড।)

রেফ্রিজারেটরে কমপ্রেসরের কাজ কি?

ফ্রেয়নকে ঘনীভূত করা

ফ্রেয়নকে বাষ্পে পরিণত করা

ফ্রেয়নকে সংকুচিত করে এর তাপ ও তাপমাত্রা বাড়ানো

ফ্রেয়নকে ঠাণ্ডা করা

Description (বিবরণ) : রেফ্রিজারেটরের মধ্যে একটি শীতলীকরণ প্রকোষ্ঠ থাকে, যাকে ঘিরে থাকে ফাঁপা নলের তৈরি বাষ্পীভবন কুণ্ডলী। এই কুণ্ডলীর মধ্যে উদ্বায়ী পদার্থ ফ্রেয়ন থাকে এবং এক একটি সংকোচন পাম্প বা কমপ্রেসর চালু করা হলে নলের ভিতরের চাপ কমে যাওয়ায় ফ্রেয়ন দ্রুত বাষ্পীভূত হয়। ফ্রেয়ন বাষ্পীভূত হওয়ার সময় বাষ্পীভবনের জন্য প্রয়োজনীয় সুপ্ততাপ শীতলীকরণ প্রকোষ্ঠ থেকে নেয় বলে এখানে শীতলীকরণ ঘটে। পরবর্তীকালে বাষ্পীভূত ফ্রেয়নকে গনীভূবন কুণ্ডলীর মধ্যে এনে কমপ্রেসরের সাহায্যে সঙ্কুচিত বা ঘনীভূত করে পুনরায় তরলে পরিণত করা এবং ফ্রেয়নকে ঘনীভূত করা এই উভয় কাজই কমপ্রেসর করে থাকে। তবে কমপ্রেসরের প্রধান কাজ হলো ফ্রেয়নকে ঘনীভূত করা।

এক গ্রাম পানির তাপমাত্রা ২০ ডিগ্রি হতে ৩০ ডিগ্রি সেলসিয়াসে বৃদ্ধির জন্যে কত তাপের প্রয়োজন?

১০ ক্যালরি

২ ক্যালরি

৩ ক্যালরি

৪ ক্যালরি

Description (বিবরণ) : আমরা জানি, কোনো বস্তুর তাপমাত্রা বৃদ্ধির জন্য প্রয়োজনীয় তাপের পরিমাণ = বস্তুর ভর গুন আপেক্ষিক তা গুন তাপমাত্রার পার্থক্য । এখানে, পানির ভর =১ গ্রাম, আপেক্ষিক তাপ =১ ক্যালরি /গ্রাম /ডিগ্রী সেলসিয়াস = ১০ ডিগ্রী সেলসিয়াস । .'. প্রয়োজনীয় তাপের পরিমাণ = ১ গুন ১ গুন ১০ ক্যালরি = ১০ ক্যালরি । কাজেই প্রদত্ত উত্তরগুলোর মধ্যে কোনোটিই সঠিক নয়।

কোন শব্দ শোনার পরে কত সেকেন্ড পর্যন্ত এর রেশ আমাদের মস্তিষ্কে থাকে?

১ সেকেন্ড

০.১ সেকেন্ড

০.০১ সেকেন্ড

০.০০১ সেকেন্ড

Description (বিবরণ) : কোনো শব্দ শোনার পর প্রায় ০.১ সেকেন্ড পর্যন্ত এর রেশ আমাদের মস্তিষ্কে থাকে। এই সময়কে শব্দানুভূতির স্থায়িত্বকাল বলে। কোনো শব্দ শোনার পর যদি ০.১ সেকেন্ডের মধ্যে আরেকটি শব্দ আমাদের কানে এস পৌঁছায় তবে আমাদের মস্তিষ্ক দুটি শব্দ আলাদাভাবে শনাক্ত করতে বা বুঝতে পারে না।

টেপ রেকর্ডার এবং কম্পিউটারের স্মৃতির ফিতায় কি ধরনের চুম্বক ব্যবহৃত হয়?

স্থায়ী চুম্বক

অস্থায়ী চুম্বক

সংকর চুম্বক

প্রাকৃতিক চুম্বক

Description (বিবরণ) : টেপ রেকর্ডার এবং কম্পিউটারের স্মৃতির ফিতায় সিরামিক চুম্বক ব্যবহৃত হয় । এই সিরামিক চুম্বক হচ্ছে এক ধরনের স্থায়ী চুম্বক বা আয়রন অক্সাইড ও বেরিয়াম অক্সাইডের মিশ্রণে তৈরি ফেরাইট (Ferrite ) নামক যৌগিক পদার্থ দ্বারা গঠিত।

টেলিভিশনে রঙিন ছবি উৎপাদনের জন্যে কয়টি মৌলিক রং- এর ছবি ব্যবহার করা হয়?

১ টি

২ টি

৩ টি

৪ টি

Description (বিবরণ) : আমাদের চারপাশে প্রতিনিয়ত যে অসংখ্য রঙের বস্তু দেখতে পাই , সেই রঙগুলোর প্রতিটিই তিনটি মূল বা মৌলিক রঙ দ্বারা সৃষ্ট। এ রঙ তিনটি হচ্ছে: লাল, সবুজ ও নীল এবং এ তিনটি রঙকে বিভিন্ন অনুপাতে মিশিয়ে আমাদের চারপাশে দৃশ্যমান সকল রঙই তৈরি করা সম্ভব। এজন্যই টেলিভিশনে বিভিন্ন রঙের রঙিন ছবি উৎপাদনের জন্য এই তিনটি মৌলিক রঙ ব্যবহার করা হয়।

যে যন্ত্রের সাহায্যে পরবর্তী উচ্চ বিভবকে নিম্ন বিভবে এবং নিম্ন বিভবকে উচ্চ বিভবে রূপান্তরিত করা হয় তার নাম কি?

ট্রান্সফর্মার

মোটর

জেনারেটর

ডায়নামো

Description (বিবরণ) : যে যন্ত্রের সাহায্যে পরিবর্তী উচ্চ বিভবকে নিম্ন বিভবে এবং নিম্ন বিভবকে উচ্চ বিভবে রুপান্তর করা হয়, তাকে ট্রান্সফর্মার (Transformer) বা রুপান্তর বলে। আবার যে যন্ত্রের সাহায্যে বিদ্যুৎ শক্তিকে যান্ত্রিক শক্তিতে রুপান্তর করা যায়, তাকে বৈদ্যুতিক মটর বলে। অপরদিকে , যে যন্ত্রের সাহায্যে যান্ত্রিক শক্তিকে বিদ্যুৎ শক্তিতে রুপান্তর করা যায়, তাকে জেনারেটর (Generator ) বা ডায়নামো (Dynamo) বলে।